প্রবাসী তরুনী মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন সৌদি আরবের সৈকতে

সৌদি আরবের আল-খবার শহরের জনপ্রিয় হাফ মুন সৈকতে খেলার সময় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন ভারতীয় এক কিশোরী। রোববার সৌদি আরবের জাতীয় দৈনিক সৌদি গ্যাজেটের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুক্রবার সকালের দিকে হাফ মুন সৈকতে মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।

সৌদি গ্যাজেট বলছে, শাহের পারভেজ নামের ১৫ বছর বয়সী ওই কিশোরী দাম্মাম শহরের ইন্টারন্যাশনাল ইন্ডিয়ান স্কুলের ১০ম গ্রেডের শিক্ষার্থী ছিলেন। শুক্রবার সকালে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে সৈকতে মারা গেছেন তিনি।

ওই কিশোরীর পিতা পারভেজ আলি খান বলেন, ‘এটা ছিল আনন্দভ্রমণ। আমরা সৈকতে একত্রিত হয়েছিলাম। আমার মেয়ে সমুদ্রের জলে আনন্দ করছিল। কিছুক্ষণ পর সে পানি থেকে উঠে এসে আমার স্ত্রীকে ডেকে নেয়। হঠাৎ তার অবস্থা খারাপ হয়। আশ-পাশে যারা ছিল তাদের কাছে সাহায্য চায় আমার স্ত্রী।’

‘এসময় কোস্ট গার্ডের উদ্ধারকারী দলের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পরে তাকে কিং ফাহাদ মেডিক্যাল সিটিতে নেয়া হয়। সেখানে পৌঁছার পর চিকিৎসক আমার মেয়েকে মৃত ঘোষণা করেন।’

ভারতের উত্তর প্রদেশের রামপুরের বাসিন্দা পারভেজ আলি খান গত ২০ বছর ধরে সৌদি আরবে বসবাস করে আসছেন। শুক্রবার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সমুদ্র সৈকতে ঘুরতে গিয়েছিলেন তিনি।

পারভেজ খানের মেয়ে সমুদ্রের পানিতে খেলার সময় সাপে কেটেছিল বলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে। তবে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে শাহের মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

Leave a Reply